রাঙ্গা আমাকে দুর্নীতিবাজ বলায় খুব কষ্ট পেয়েছি: ঝন্টু



রংপুর প্রতিনিধি : রংপুরে পরাজিত আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ও সাবেক মেয়র সরফ উদ্দিন আহাম্মেদ ঝন্টু ক্ষোভ জানিয়ে বলেছেন, আমার পাড়ার ছেলে, জাপা নেতা ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা আমাকে দুর্নীতিবাজ বলেছে। সে আমার ছোট ভাইয়ের মতো। তার কাছে কি প্রমাণ আছে, আমি

দুর্নীতিবাজ?  রাঙ্গার এই বক্তব্যে আমি দুঃখ পেয়েছি।গতকাল শুক্রবার দুপুরে জুমার নামাজ শেষে নির্বাচনের বেসরকারি ফল ঘোষণার ১৪ ঘণ্টা পর প্রথমবারের মতো গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন ঝন্টু। এ সময় তিনি পরাজয়ের কারণ নিয়ে কোনও কথা বলতে চাননি। বলেন, আজ হোক, কাল হোক সব জানতে পারবেন। তবে নির্বাচনের ফল মেনে নিয়ে আজ শনিবার নবনির্বাচিত মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার বাসায় ফুল নিয়ে যাবেন বলেও তিনি জানান।
গত বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত রংপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রার্থী মোস্তফার কাছে প্রায় এক লাখ ভোটে পরাজিত হন আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও সদ্য দায়িত্ব ছেড়ে দেয়া মেয়র ঝন্টু। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নির্বাচনের ফল ঘোষণা শুরুর পরই স্পষ্ট হয়ে যায়, বড় ব্যবধানে হারতে যাচ্ছেন তিনি। তখন থেকেই তার প্রতিক্রিয়া জানার জন্য গণমাধ্যমকর্মীরা ঝন্টুর গুপ্তপাড়ার বাসভবনে ভিড় জমাতে থাকেন। কিন্তু গভীর রাত পর্যন্ত তিনি কারও সাথেই কথা বলতে রাজি হননি। গতকাল শুক্রবার সকালেও তার বাসার সামনে ভিড় জমান গণমাধ্যমকর্মীরা। কিন্তু এসময়ও তিনি কোনও কথা বলেননি।নির্বাচনের ফল ঘোষণার প্রায় ১৪ ঘণ্টা পর, জুমার নামাজ শেষে ঝন্টু মসজিদের সামনে অপেক্ষমাণ গণমাধ্যমকর্মীদের নিজ বাসায় ডেকে নিয়ে আসেন। সেখানেই তিনি কথা বলেন তাদের সাথে।
উল্লেখ্য, রসিক নির্বাচনে বিজয়ী জাপা প্রার্থী মোস্তফার প্রাপ্ত ভোটের সাথে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ঝন্টুর প্রাপ্ত ভোটের ব্যবধান ৯৮ হাজার ৮৯। নির্বাচনে মোস্তফা পেয়েছেন ১,৬০,৪৮৯ ভোট, ঝন্টু পেয়েছেন ৬২,৪০০ ভোট। শুধু তাই নয়, নিজের কেন্দ্রেও ঝন্টু পরাজিত হয়েছেন মোস্তফার কাছে। এই কেন্দ্রে মোস্তফার সাথে তার ভোটের ব্যবধান ছিল ২৪৩। গত বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঝন্টু ভোট দেন সালেমা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে। এখানে তিনি পেয়েছেন ৭৪২ ভোট, বিপরীতে মোস্তফা পেয়েছেন ৯৮৫ ভোট।