যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদ থেকে শিতাংশু গুহের পদত্যাগে গুঞ্জন!

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি: যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারন সম্পাদক পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন শিতাংশু গুহ। ১৯৯৬ সালের প্রতিষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি। গত বৃহস্পতিবার এ পদ থেকে পদত্যাগ করায় নানা গুঞ্জন শুরু হয়েছে।


পদত্যাগ পত্রে ব্যক্তিগত কারন উল্লেখ করা হলেও সাম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র শেখ কামাল স্মৃতি পরিষদের এক সভায় নিউ ইয়র্কস্থ ভারতীয় কনসাল জেনারেল ও বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সামনে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনসহ দেশ বিরোধী বক্তব্য দেওয়ায় তাঁর সামনেই নানা কটুক্তিসহ ধিক্কার জানানো হয়েছিল। শিতাংশু গুহের পদত্যাগের এটি একটি কারন বলেও অনেকেই ধারনা করছেন।
এদিকে যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি ড. নুরুন নবী এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সাধারন সম্পাদক শিতাংশু গুহ দীর্ঘদিন সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে পদত্যাগ পত্র পাঠিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হিসেবে আমি তাঁর পদত্যাগ পত্র গ্রহণ করেছি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শ প্রচার ও প্রসারে এতদিন কাজ করার জন্য তিনি পদত্যাগী সাধারন সম্পাদক শিতাংশু গুহকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তিনি উল্লেখ করেন বঙ্গবন্ধু পরিষদকে গতিশীল রাখার জন্য পরবর্তী পূর্ণাঙ্গ কমিটি না করা পর্যন্ত রাফায়েত চৌধুরীকে বঙ্গবন্ধু পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এবং স্বীকৃতি বড়ুয়াকে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকের পদ দেওয়া হয়েছে।
অপর দিকে বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারন সম্পাদক পদ থেকে শিতাংশু গুহের পদত্যাগের ঘটনাটি নিয়ে নিউ ইয়র্কে নানা গুঞ্জন শুরু হয়েছে। গত ১৬ ডিসেম্বর শনিবার নিউ ইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের একটি পার্টি হলে যুক্তরাষ্ট্রস্থ শেখ কামাল স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত মহান বিজয় দিবসের এক আলোচনা সভায় শিতাংশু গুহ নিউ ইয়র্কস্থ ভারতীয় কনসাল জেনারেল ও বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সামনে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনসহ দেশ বিরোধী বক্তব্য দেন। বক্তব্যের পরই তাঁর সামনেই তাঁকে নানা কটুক্তিসহ ধিক্কার জানান অনুষ্ঠানের প্রধান সমন্বয়কারী হাজী এনাম এবং শেখ কামাল স্মৃতি পরিষদের সভাপতি ডা. মাসুদুল হাসান। এ সময় তিনি বলেন, ভবিষ্যতে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের কোন সভায় শিতাংশু গুহকে কোন বক্তব্যে দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হবেনা।
জাতিসংঘ বাংলাদেশ মিশনের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন, নিউ ইয়র্কে কর্মরত ভারতীয় কনসাল জেনারেল সন্দীপ চক্রবর্তী,নিউ ইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনসাল জেনারেন শামীম আহসান, যুক্তরাষ্ট্র শেখ কামাল স্মৃতি পরিষদের সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ বি সিদ্দিকি, যুক্তরাষ্ট্র আ.লীগের উপদেষ্টা ড. মহসিন আলী, ড. প্রদীপ রঞ্জন কর, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহিম বাদশা, আইন বিষয়ক সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ বখতিয়ার, দপ্তর সমাপদক মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, ড. নেভেল রোজারিও, সরাফ সরকার, নিউ ইয়র্ক ষ্টেট আ.লীগের সা.সম্পাদক শাহীন আজমল, নিউ ইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এমদাদ চৌধুরী, কাজী কয়েস, যুক্তরাষ্ট্র শেখ কামাল স্মৃতি পরিষদের যুগ্ম সা. সম্পাদক দুরুদ মিয়া রনেল, মিশফাক আহমেদ চৌধুরী মিশু, এম এ করিম জাহাঙ্গীর, মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুক খসরু, এম এ বাতেন, খান শওকত, সেবুল দেবনাথ ও সবিতা দাসসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মিরা  উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন।